খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও যশোরে দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচিত হলেন যারা

৬ষ্ঠ উপজেলা নির্বাচনে খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও যশোর জেলার ৯টি উপজেলা নির্বাচন গতকাল মঙ্গলবার বড় ধরনের কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচন শেষে ভোট গণনার পর ফলাফল প্রকাশ করা হয়। আমাদের জেলা ও সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রতিনিধিদের প্রেরিত রিপোর্ট।

ফকিরহাটে বাবু, মোল্লাহাটে ছানা ও চিতলমারীতে আলমগীর: আমাদের বাগেরহাট প্রতিনিধি জানান, বাগেরহাটের ৩টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুইটিতে নতুন এবং একটি উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী ফকিরহাট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে যুবলীগ নেতা সেখ ওয়াহিদুজ্জামান বাবু নির্বাচিত হয়েছেন। এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে শেখ ইমরুল হাসান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তহুরা খাতুন নির্বাচিত হয়েছেন।
চিতলমারীতে চেয়ারম্যান পদে আবু জাফর মোঃ আলমগীর হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কাজী আজমীর আলী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সুলতানা মলি­ক নির্বাচিত হয়েছেন।
মোল­াহাটে চেয়ারম্যান পদে শাহিনুল আলম ছানা পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া এই উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ নজরুল ইসলাম মিল্টন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে রীনা পারভীন নির্বাচিত হয়েছেন। সংশ্লিষ্ট উপজেলার সহকারি রিটার্নিং কর্মকর্তার দপ্তর ও নিয়ন্ত্রণ কক্ষে প্রেরিত ফলাফল থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ফুলতলায় আকরাম, তেরখাদায় হাসান ও দিঘলিয়ায় মারুফুল: খুলনার ফুলতলা উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে শেখ আকরাম হোসেন পুনরায় ও তেরখাদা উপজেলায় আবুল হাসান শেখ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ফুলতলায় শেখ আকরাম পেয়েছেন ২১ হাজার ৮২৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী মোঃ সাব্বির হোসেন পেয়েছেন ১৬ হাজার ৮৪ ভোট।
অপর দিকে তেরখাদায় আবুল হাসান ২৮ হাজার ১৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী খুলনা জেলা আ’লীগের যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু ২২ হাজার ৭৩৮ ভোট পেয়েছেন।
অপরদিকে দিঘলিয়া উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগ নেতা শেখ মারুফুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন। অসমর্থিত সূত্র জানিয়েছে, শেখ মারুফুল ইসলাম পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৪২৩ ভোট ও তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী মহিউদ্দিন মলি­ক পেয়েছেন ১৬ হাজার ২৭৩ ভোট।
দ্বিতীয় ধাপে মঙ্গলবার খুলনার ফুলতলা, দিঘলিয়া ও তেরখাদা উপজেলায় নিরূত্তাপ ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও পুরুষের চেয়ে নারী ভোটারের সংখ্যাই ছিল বেশি। কোনো কেন্দ্রেই ভোটারের লম্বা লাইন চোখে পড়েনি।

আশাশুনিতে মোস্তাকিম, তালায় সনত ও দেবহাটায় আলফা: আমাদের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, সাতক্ষীরা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আশাশুনি উপজেলায় এবিএম মোস্তাকিম, তালা উপজেলায় ঘোষ সনত ও দেবহাটা উপজেলায় আল ফেরদৌস আলফা বেসরকারিভাবে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২১ মে) রাতে স্ব স্ব উপজেলা রির্টানিং অফিস থেকে বেসরকারীভাবে এ ফলাফল ঘোষনা করা হয়।
বেসরকারীভাবে নির্বাচিতদের মধ্যে তালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সাবেক তিনবারের উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক ঘোষ সনদ কুমার কাপ পিরিচ প্রতিক নিয়ে ৪৭ হাজার ৮৪৭ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চিংড়ি মাছ প্রতীকের প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা সরদার মশিয়ার রহমান চিংড়ি মাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩২ হাজার ৬৭৮ ভোট। এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন ইখতিয়ার হোসেন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোস্তারী সুলতানা পুতুল নির্বাচিত হয়েছেন।

এদিকে, আশাশুনি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে চিংড়ি মাছ প্রতিক নিয়ে ৩৮ হাজার ১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক তিনবারের উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঘোড়া প্রতিক নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতা শাহনেওয়াজ ডালিম পেয়েছেন ৩৭ হাজার ১৮৮ ভোট।

এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন সাহেব আলী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোসলেমা খাতুন মিলি পূনরায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া দেবহাটা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হেলিকপ্টার প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যবসায়ী আলফেরদাউস আলফা ২৬ হাজার ৩৭৭ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগ নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুজিবর রহমান মোটর সাইকেল প্রতিক নিয়ে ১৭ হাজার ১৫২ ভোট পেয়েছেন। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পূনরায় নির্বাচিত হয়েছেন যারা তারা হলেন, হাবিববুর রহমান সবুজ ও জি এম স্পর্শ।

চৌগাছায় হাবিব, ঝিকরগাছা মনিরুল ও শার্শায় সোহরাব: আমাদের যশোর প্রতিনিধি জানান, যশোরের চৌগাছা, ঝিকরগাছা ও শার্শা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শেষ হয়েছে। এসব উপজেলায় প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হলেন চৌগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম হাবিবুর রহমান। তিনি আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। ঝিকরগাছা উপজেলায় চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে সাংবাদিক ইমরান রশীদ নির্বাচিত হয়েছেন।
শার্শা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সোহরাব হোসেন বিজয়ী হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন আব্দুর রহিম সরদার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন শামীমা আলম সালমা।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত তিনটি উপজেলায় বিরতিহীনভাবে ইভিএম-এ ভোটগ্রহণ করা হয়। তিন উপজেলার মোট ২৯৩টি কেন্দ্রের ২১৭৩টি কক্ষে ভোট গ্রহণ করা হয়। এ তিনটি উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭১১ জন। এসব ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিয়েই আগামী দিনের জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করেন।


এম এস খালিদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপি বা সিলেক্ট করা যাবে না।