সন্ত্রাস,দুর্নীতি ও চাঁজাবাজমুক্ত মনিরামপুর গড়তে চাই

মনিরামপুর(যশোর)প্রতিনিধি

সন্ত্রাস,দুর্নীতি ও চাঁজাবাজমুক্ত মনিরামপুর গড়তে চাই    আলহাজ্ব এস.এম ইয়াকুব আলী (এমপি)।

সন্ত্রাসীর কোন স্থান মনিরামপুরে নাই। মনিরামপুরে কোন দুর্নীজিবাজ ও দুষ্কৃতিকারী থাকবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনার আধুনিক স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সন্ত্রাস ও দুর্নীতি দমনকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যে আমি সন্ত্রাস,দুর্নীতি ও চাঁজাবাজমুক্ত মনিরামপুর গড়তে চাই। মণিরামপুরের জনগণ দুর্নীতিবাজ, দুষ্কৃতিকারী ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে ভোট বিপ্লব ঘটিয়ে আমাকে নির্বাচিত করেছেন। মনিরামপুরে কোন দুষ্কৃতিকারী থাকবে না। কোন দখলদার থাকবে না। কোন চাঁদাবাজ থাকবে না। মনিরামপুরের মানুষ যাতে সুখে শান্তিতে বসবাস করতে পারে তার জন্য আমি সর্বাত্বক চেষ্টা চালিয়ে যাবো। মঙ্গলবার দুপুরে মনিরামপুর উপজেলার আগরহাটি গ্রামে নির্বাচন পরবর্ত্তী জনগণের স্বতস্ফুর্ত উপস্থিতিতে এক বিশাল গনসংবর্ধনার জবাবে বক্তব্য প্রদানকালে যশোর-৫ (মনিরামপুর) আসন থেকে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এস.এম ইয়াকুব আলী উপরোক্ত কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, আপনারা আমাকে কেহই এমপি বলে ডাকবেন না। আমি নেতা হতে চাই না। আমাকে ভাই সম্বোধন করলেই আমি খুশি হবো। আমি জনগণের সেবক হতে চাই। তিনি মনিরামপুরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আপনারা আমাকে ভালবেসে নিঃস্বার্থে ভোট দিয়ে এমপি নির্বাচিত করে যে সম্মান দিয়েছেন তারজন্য আমি চিরঋণী হয়ে থাকবো। আপনাদের সেই ঋণ আমি আপনাদের কল্যাণে কাজ করে শোধ করার চেষ্টা করবো।

এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক প্রভাষক ফারুক হোসেন, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জি এম মজিদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন, সহসভাপতি গৌর কুমার ঘোষ, যুগ্ম সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান শামছুল হক মন্টু, যুগ্ম সম্পাদক বাবুল আক্তার বাবলু, সাংগাঠনিক সম্পাদক সন্দীপ ঘোষ, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি আবুল ইসলাম,আইন বিষয়ক সম্পাদক সুব্রত ব্যানার্জী, অধ্যক্ষ মিলন ঘোষালসহ বিপুল সংখ্যক দলীয় নেতাকর্মী ও আপামর জনগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপি বা সিলেক্ট করা যাবে না।